বিশ্ব সংবাদ

নাইজেরিয়ায় রানীকে অপহরণ, রাজাকে গুলি করে হত্যা

নাইজেরিয়ার কোয়ারা রাজ্যে প্রাসাদে ঢুকে রাজা সেগুন আরেমুকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। সেই সঙ্গে রানীকে অপহরণ করেছে বন্দুকধারীরা।
স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) রাতে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়দের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে বিবিসি।

সংবাদ মাধ্যমটির প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, কোয়ারা রাজ্যে অপহরণের ঘটনা মোকাবেলায় জরুরি অবস্থা জারির দাবির পরেই এ ঘটনা ঘটলো। নিহত রাজা উপাধি ধারণ করা সেগুন আরেমু একজন অবসরপ্রাপ্ত জেনারেল। পূর্বপুরুষের মতো তিনিও রাজ্যটির প্রথাগত রাজা ছিলেন। তার আনুষ্ঠানিক উপাধি ছিল কোরোর ওলুকোরো। তবে এ ঘটনার সঙ্গে কারা জড়িত তা স্পষ্ট নয়। এখন পর্যন্ত রানীর মুক্তিপণ দাবি করা হয়নি।

এদিকে নাইজেরিয়ার গভর্নর আব্দুল রহমান আব্দুল রাজ্জাক রাজাকে হত্যার ঘটনাটিকে ‘বেপরোয়া, মর্মান্তিক ও জঘন্য’ বলে আখ্যা দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার করা হবে।

দেশটির পুলিশ জানিয়েছে, বন্দুকধারীদের ধরতে অভিযান চলছে।

এ ঘটনায় নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট বোলা টিনুবুর কাছে জরুরি অবস্থা জারির দাবি জানিয়েছে সুশীল সমাজের ৫০টি সংগঠন। তারা জানিয়েছে, গতবছর মে মাসে বোলা টিনুবু প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর দেশটির ১ হাজার ৮০০’র বেশি মানুষ অপহৃত হয়েছেন।

সম্প্রতি নাইজেরিয়ার একিতি রাজ্যে পাঁচ স্কুলশিশু এবং চার শিক্ষককে জিম্মি করে তাদের মুক্তির জন্য বড় অঙ্কের মুক্তিপণ দাবি করে অপহরণকারীরা। গত বুধবার রাতে দেশটির রাজধানী থেকে এক ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তা অপহৃত হয়েছেন। গত মাসে ৬ বোনকে তাদের বাবাসহ অপহারণ করা হয়েছিল। মুক্তিপণ দিতে দেরির কারণে ওই ছয় বোনের একজনকে হত্যা করা হয়েছিল।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

আরও পড়ুন:

Back to top button